Breaking News
Loading...

Recent Post

শনিবার, জুলাই ২৭, ২০১৩
একটা সফটওয়্যারই কম্পিউটারের আলো থেকে আপনার চোখকে রক্ষা করবে

একটা সফটওয়্যারই কম্পিউটারের আলো থেকে আপনার চোখকে রক্ষা করবে

এখনকার সময়ে কম্পিউটার আর ইন্টারনেট শব্দ দুইটা আমাদের প্রাত্যাহিক জীবনের সাথে অঙ্গাঙ্গী ভাবে জড়িত। এই দুইটা ছাড়া মনে হয় আমাদের জীবন চলেই না। আর ফেসবুকের কল্যাণে তো কম্পিউটারের সামনে প্রতিদিন দুই ঘন্টা না বসলেই নয়, এমন লোক খুব কমই পাওয়া যাবে। তাছাড়া কম্পিউটারে বসে দৈনন্দিন পত্রিকা পড়ার কথা আর নাই বা বললাম। এমন অনেক সময় কম্পিউটারের দিকে তাকিয়ে থাকতে থাকতে এর আলোতে আমাদের চোখে প্রবলেম শুরু হয়। আজকে আমি আপনাদের এমন একটি সফটওয়্যার এর কথা বলবো যেটা আপনার কম্পিউটারের মনিটরের আলো নিয়ন্ত্রণ করে আপনার চোখকে সুরক্ষিত রাখবে।


এই সফটওয়্যারটির নাম F.lux । এটা স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপনার মনিটরের আলো বাড়িয়ে-কমিয়ে আপনার মনিটরের আলোকে আপনার চোখের জন্য সংবেদনশীল রাখবে



ডাউনলোডঃ
এটা উইন্ডোজ এর সকল ভার্সনেই কাজ করবে। ডাউনলোড করুন এখানথেকে অথবা এখান থেকে

কার্যপ্রণালী
১। সফটওয়্যারটা ডাউনলোড করে ইন্সটল করে নেন।

২। সফটওয়্যারটা ওপেন করলে আপনি সব অপশন দেখতে পাবেন।

৩। এটা যখন ওপেন করবেন তখন এটা আপনার টাইম-জোন স্বয়ংক্রিয়ভাবে সিলেক্ট করে নিবে এবং আপনার মনিটরের আলোকে হ্যালোজেন, ফ্লুরোসেন্ট অথবা ডে-লাইট এ পরিবর্তন করবে।

৪। আপনি Change Setting অপশন ব্যাবহার করে আপনার নিজের মত করে সেটিংস করতে পারবেন।

৫। সেটিংস অপশনে গেলে আপনি আপনার দিনের অথবা রাতের আলোকে নিজের পছন্দ মতো বাড়িয়ে-কমিয়ে নিতে পারবেন।

৬। আপনি আপনার সঠিক Latitude দিয়ে আপনার লোকেশন ঠিক করে দিতে পারবেন।

৭। কালার সেনসিটিভ কাজ যেমন ওয়েব-ডিজাইনিং, ফটো-এডিটিং, অ্যানিমেশন তৈরি, গ্রাফিক্স-ডিজাইনিং এর সময় এটাকে ডিজেবল বাটন দ্বারা বন্ধ করে রাখতে পারবেন।




কিভাবে বুঝবেন এটা আপনার কম্পিউটারে কাজ করছে কিনাঃ
এটা আপনি খুব সহজেই নির্ণয় করতে পারবেন। শুধু আপনি এই সফটওয়্যারটাকে কিছু সময়ের জন্য ডিজেবল করে রাখুন। এবার আপনার মনিটরের স্ক্রীনের আলোর পার্থক্য দেখেই বুঝতে পারবেন F.lux কিভাবে আপনার মনিটরের আলোকে নিয়ন্ত্রণ করছিল।





আমি এই সফটওয়্যারটি অনেক দিন ধরে ব্যাবহার করছি। আমি এটা ব্যবহার করে অনেক উপকার পেয়েছি। তাই, আশাকরি আপনাদেরও ভালো লাগবে। যদি কোন সমস্যা হয়, তাহলে কমেন্ট করতে ভুলবেন নাহ। আপনাকে সাহায্য করার জন্য আমরা আমাদের সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। 

বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৮, ২০১৩
মোবাইলে বাংলা লিখুন পাণিনী কিবোর্ড দিয়ে

মোবাইলে বাংলা লিখুন পাণিনী কিবোর্ড দিয়ে

Panini KeyPad
মোবাইলে বাংলা লেখা যদিও একটু কষ্টের, তবুও লিখে সবার সাথে শেয়ার করার মজাই আলাদা। যারা এমন লেখে তারাই এটার গুরুত্ব বুঝবে। গত পর্বে আমি দেখিয়েছিলাম কিভাবে অপেরা দিয়ে মোবাইলে বাংলা লিখে সেটা এসএমএস করা যায় অথবা ফেসবুকে শেয়ার করা যায়। আজ আমি দেখাবো কিভাবে পাণিনী কিবোর্ড দিয়ে মোবাইলে বাংলা লিখে সেটা সবার সাথে শেয়ার করা যায় অথবা কাউকে এসএমএস করা যায়। এটা সকল জাভা এবং সিম্বিয়ান এবং এন্ড্রয়েড ফোনে কাজ করবে।

ডাউনলোডঃ

জাভা এবং সিম্বিয়ানঃ কোন কথা নয় প্রথমেই পাণিনী কিবোর্ডটা এখান থেকে অথবা এখান থেকে ডাউনলোড করে নেন।

এন্ড্রয়েড ডাউনলোডঃ চিন্তার কোনো কারন নেই, এটা এন্ড্রয়েড ফোনের জন্যও আছে। আপনি এটা আপনার এন্ড্রয়েড ফোনের জন্য ডাউনলোড করেতে পারেন এখান থেকে

 

কার্যপ্রণালীঃ

Write Text
১। এবার অ্যাপ্লিকেশনটা আপনার ফোনে ইন্সটল করে নেন।

২। এটা ওপেন করলেই আপনি এটার সবকিছু বুঝতে পারবেন। যারা না বুঝতে পারবেন তাদের জন্য তো আমি আছি।

৩। লিখুন অপশনটা সিলেক্ট করুন।

Writeable Box
৪। এবার আপনি একটা লেখার বক্স দেখতে পাবেন যার নিচে অনেকগুলা অক্ষর কিপ্যাড এর ১,২,৩......... বাটন অনুসারে সাজানো আছে।

৫। আপনি উপর-নিচ করে অথবা মাঝের বাটন চেপে বিভিন্ন অক্ষর আনতে পারবেন।

৬। আপনি যে অক্ষরটা লিখতে চান সেটা যে অক্ষর এর বক্সে থাকবে সেটা প্রেস করুন।

৭। এভাবে একের পর এক উপর-নিচ করে আপনার কাঙ্ক্ষিত লেখাটা লিখুন।

Save Text
৮। লেখা শেষ হলে অপশন থেকে রক্ষন করুন।

৯। এবার অপশন থেকে ফেরত এ গিয়ে খসড়া এর ভিতর ঢুকুন ।

Draft
১০। এখানে আপনার লেখাটা দেখতে পাবেন এবং সেটা ওপেন করুন ।

১১। এবার সেটা কাউকে এসএমএস হিসেবে পাঠাতে পারবেন।

১২। আর আপনি যদি ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিতে চান অথবা কোথাও পোস্ট করতে চান, তাহলে ওখান থেকে মার্ক করে কপি করুন। আপনার যদি কোয়ার্টি কী-প্যাড ফোন হয়, তাহলে Ctrl+A চেপে সব মার্ক করে Ctrl+C দিয়ে সব কপি করতে পারবেন। কোথাও সেটা পেস্ট করতে চাইলে Ctrl+V চাপুন।
Yes, I can


এছাড়া আপনি এটা দিয়ে হিন্দি, তেলেগু, মারাঠি, তামিল, গুজরাঠি, কান্নাডা, মালাইলাম, অরিয়া, পাঞ্জাবী, আসামি, শিভা, ইংলিশ ভাষাতেও লিখতে পারবেন। শুধুমাত্র অপশন থেকে ভাষা নির্বাচন করলেই হবে।



প্রথম প্রথম আপনার লিখতে একটু কষ্ট হতে পারে। দুই-একদিন লেখার পরে দেখবেন খুব সহজে আর দ্রুত লিখতে পারছেন। এটার ওয়ার্ড সাজেশন আপনাকে দ্রুত লিখতে অনেক বেশি সাহায্য করবে। আর প্রবলেম হলে তো আমি আছিই, শুধু কমেন্ট করতে না ভুললে হল।

রবিবার, জুলাই ১৪, ২০১৩
no image

লিরিক্সঃ পথ চলতে; মুভিঃ জাগো

পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে
বার বার শুধু ফিরে চাওয়া
বার বার একই গান গাওয়া
এটাই বোধয় ভালবাসা,
এটাই বোধয় প্রেম।
এটাই বোধয় ভালবাসা,
এটাই বোধয় প্রেম।
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে।।

নিলীমার প্রাণে মুগ্ধ চোখে
নীরবে শুধু চেয়ে থাকা
কারো দুটি খোলা চোখে
অপলক যেন শুধু দেখা।
ভালো লাগা ভালো লাগা
মন ভালো লাগা
এটাই বোধয় ভালবাসা,
এটাই বোধয় প্রেম।
এটাই বোধয় ভালবাসা,
এটাই বোধয় প্রেম।
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে ।।

সময় যেন কাটে না আর
একঘেয়ে লাগেনা কিছু
সময় হীনা মন শুধু
ছুটে যায় স্বপ্নের পিছু
ভালো লাগা ভালো লাগা
শুধুই ভালো লাগা
এটাই বোধয় ভালবাসা,
এটাই বোধয় প্রেম।
এটাই বোধয় ভালবাসা,
এটাই বোধয় প্রেম।

পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে
বার বার শুধু ফিরে চাওয়া
বার বার একই গান গাওয়া
এটাই বোধয় ভালবাসা,
এটাই বোধয় প্রেম।
এটাই বোধয় ভালবাসা,
এটাই বোধয় প্রেম।
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে।।

পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে
পথ চলতে পথ চলতে
কখনোও পিছু থমকে।।


টাইটেলঃ পথ চলতে।

মুভিঃ জাগো।
বুধবার, জুলাই ১০, ২০১৩
এবার মোবাইল দিয়েই বাংলা লিখুন আরো সহজে

এবার মোবাইল দিয়েই বাংলা লিখুন আরো সহজে

banla lekha opera
বর্তমান সময়ে মোবাইল জিনিসটা আমাদের জীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। মোবাইল বিহীন আমরা একটা মুহূর্তও কল্পনা করতে পারিনা। আর মোবাইল এর এখনকার সর্বোত্তম ব্যাবহার শুধুমাত্র কথা বলা বা টেক্সট আদান-প্রদানের ভিতরই শুধু সীমাবদ্ধ নয়। এখন মোবাইল বেশি ব্যাবহার করা হয় ইন্টারনেট ব্রাউজিং করতে। আর এখন বাংলাদেশের প্রেক্ষিতে ইন্টারনেট বলতে ফেসবুককেই বেশি গুরুত্ব দেয়া হয়। এই ফেসবুকের মাধ্যমেই মানুষ তার মনের ভাষা খুব সহজেই সবার সাথে শেয়ার করতে পারে। আর বাংলাতে মনের ভাষা শেয়ার করার বিষয় উঠলে তো কোনো কথাই নেই।

আমরা বিভিন্ন স্মার্টফোনের মাধ্যমে খুব সহজেই বাংলা লিখতে পারি। কিন্তু সব জাভা সেট কিংবা সিম্বিয়ান ফোনে বাংলা লেখাটা এতো বেশি সহজ নয়। এর আগে আমরা বাংলা লিখতে ইন্ডি-এসএমএস, পানিনি-বাংলাসহ বিভিন্ন অনলাইন আপ্লিকেশন ব্যাবহার করতাম।
আজ আমি আপনাদের সাথে একটা অপেরা শেয়ার করবো যেটার মাধ্যমে আপনি খুব সহজেই বাংলা লিখতে পারবেন। এখান থেকে বাংলা লিখে সেটা আবার এসএমএস হিসেবেও কাউকে পাঠাতে পারবেন। এটা সকল সিম্বিয়ান এবং জাভা সাপোর্টেড ফোনে কাজ করবে।

বাংলা লেখার ধাপ সমূহঃ


১। আর কথা নয়, এবার অপেরাটা এখান থেকে  অথবা এখান থেকে অথবা এখান থেকে ডাউনলোড করে নেন।

২। এবার অপেরাটা আপনার ফোনে ইন্সটল করুন। তারপর এটা ওপেন করুন।

৩। এবার কোন লেখার বক্সে গিয়ে menu তে গিয়ে ইনপুট ভাষা বাছুন এ যান এবং এখান থেকে বাংলা ভাষা সিলেক্ট করুন। [ফোন দিয়ে স্ক্রীন শর্ট নিতে পারলাম না, তাই দেখাতে পারলাম না]
write here

৪। এবার আপনি বাংলা লেখা শুরু করে দিন।

৫। ফোন এর অক্ষর গুলাতে নিম্নলিখিত সন্নিবেশ রয়েছেঃ
  1- . , । ১
  2- অ আ ই ঈ া ি ী ২
  3- উ ঊ ঋ এ ু ূ ৃ ে ৩
  4- ঐ অ ঔ ক ৈ ো ৌ ৪
  5- খ গ ঘ ঙ চ ছ জ ৫
  6- ঝ ঞ ট ঠ ড ঢ ণ ৬
  7- ত থ দ ধ ন প ফ ব ৭
  8- ভ ম য র ল শ ষ ৮
  9- স হ ড় ঢ় য় ৎ ং ঃ ৯
  10- [নিজে দেখে নিন] ( ) { } []

Bangla lekha
৬। এরপর বাংলা লিখে কাউকে এসএমএস করতে চাইলে menu তে গিয়ে edit অপশন এ গিয়ে mark সিলেক্ট করুন। এবার মার্ক করা হয়ে গেলে সেটা এবার edit অপশন থেকে সেটা কপি করুন এবং টেক্সট মেসেজ এ গিয়ে সেটা পেস্ট করে যাকে পাঠাবেন তাকে সেন্ড করুন।

৭। আবার ইংলিশ লিখতে গেলে মেনু তে গিয়ে ভাষা নির্বাচন অপশন থেকে English সিলেক্ট করুন।



আমার দেখা মতে ফোনে বাংলা লেখার জন্যে এটাই সর্বোৎকৃষ্ট অ্যাপ্লিকেশন। কয়েকদিন চেষ্টা করুন, তখন দেখবেন খুব সহজে এবং খুব তাড়াতাড়ি লিখতে পারবেন। কোন সমস্যা হলে কমেন্ট করতে ভুলবেন না।



Quick Message
Press Esc to close
Copyright © 2012-2014 Mostafizur Firoz All Right Reserved. | Designed by Wrongdhonu. | Powered by Tips And Tricks World. |